Sorry, you need to enable JavaScript to visit this website.

উৎকর্ষ বাংলা


পশ্চিমবঙ্গ দক্ষতা উন্নয়ন মিশন'-এর চেয়ারম্যান তথা পশ্চিমবঙ্গের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার সারা রাজ্যের বেকার যুবক–যুবতীদেরকে কারিগরি দক্ষতা উন্নয়নের প্রশিক্ষণ দিয়ে ব্যপকহারে কর্ম সংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে 'পশ্চিমবঙ্গ সোসাইটি ফর স্কিল ডেভেলপমেন্ট (PBSSD)' এর ব্যবস্থাপনায় গত ১৬ ই ফেব্রুয়ারী ,২০১৬ তারিখে পশ্চিমবঙ্গ কারিগরি শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা উন্নয়ন দপ্তর 'উৎকর্ষ বাংলা' নামে একটি প্রকল্পের সূচনা করেছে যাতে এই প্রকল্পের মধ্য দিয়ে কর্মপযোগী ও স্বল্প মেয়াদী দক্ষতা প্রশিক্ষণের মাধ্যমে বেকার ছেলেমেয়েদের কর্মসংস্থান সুনিশ্চিত করা যায়। পশ্চিমবঙ্গের যে কোন আবেদনকারী 'পশ্চিমবঙ্গ সোসাইটি ফর স্কিল ডেভেলপমেন্ট (PBSSD)' দ্বারা পরিচালিত সমস্ত ধরণের কর্মোপযোগী  ও স্বল্প মেয়াদী দক্ষতা প্রশিক্ষণের সুযোগ গ্রহনের জন্য নিজের নাম নথিভুক্ত করতে পারেন।

পশ্চিমবঙ্গ সরকার স্কুল ছুট ছাত্র ছাত্রীদের  ক্ষেত্রে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দেওয়ার লক্ষ্যে 'উৎকর্ষ বাংলা' প্রকল্প চালু করেছে ।
এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হ'ল স্কুল ছুট ছাত্র ছাত্রীদের ক্ষেত্রে 400 থেকে 1200 ঘন্টা বিনা মূল্যে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ দেওয়া।
এই প্রকল্পের আওতায় সুবিধাভোগীদের গাড়ি চালানো, সেলাই, টেলিভিশন মেরামত ও অন্যান্য বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম, বিউটিশিয়ান কোর্স ইত্যাদির প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে ।
কোর্স সমাপ্ত হওয়ার পরে সুবিধাভোগীদের সার্টিফিকেট দেওয়া হবে ।
পশ্চিমবঙ্গ সরকারের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত দুটি স্কিম উন্নত বিশ্বের জন্য একত্রিত হচ্ছে । কন্যাশ্রী প্রকল্পের আওতায় তালিকাভুক্ত একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এখন 'উৎকর্ষ বাংলা' তত্ত্বাবধানে কেরিয়ার কেন্দ্রিক প্রযুক্তিগত শিক্ষা পেতে চলেছে (স্বপ্নভোর )।
প্রশিক্ষণ চলাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন 50 টাকা উপবৃত্তিও পাবেন ।
'উৎকর্ষ বাংলা' জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় তথ্য সোসাইটি (ডাব্লুএসআইএস) পুরষ্কারে সম্মানজনক ওয়ার্ল্ড সামিট জিতেছে  ।  18 টি বিভাগে 1062 মনোনয়নের মধ্যে "উৎকর্ষ বাংলা" শীর্ষস্থানীয় পুরস্কার পেয়েছে এবং ক্যাপাসিটি বিল্ডিং বিভাগে বিজয়ী হয়েছে।
টিইটি & এসডি এর পরিচালক ও কাউন্সিলের তত্ত্বাবধানে ২৫০ টি আইটিআই, ১৫৩ টি পলিটেকনিক এবং প্রায় রাজ্য জুড়ে প্রায় 3500 বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলি স্বল্পমেয়াদী দক্ষতা বিকাশের জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করে। রাজ্যে স্কিলিংয়ের বার্ষিক লক্ষ্য হবে প্রাতিষ্ঠানিক এবং বেসরকারী পদ্ধতিতে সর্বমোট প্রায় 6 লক্ষ যুবক ।

Footer Background Image