Sorry, you need to enable JavaScript to visit this website.

বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা দপ্তর

বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা দপ্তরের মুখ্য কার্যাবলীকে তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে

১.  সাধারণ ত্রাণ ( নরমাল রিলিফ ).

ক). খয়রাতি সাহায্য : রিলিফ ম্যানুয়ালের ১২৬ নম্বর নিয়মানুসারে নিন্নলিখিত ব্যক্তিবর্গ যাদের কোনো সক্ষম আত্মীয়স্বজন নেই, তারা এই সাহায্য পেতে পারেন। 

১.   হারাগোবা এবং উন্মাদ, ২.  খোঁড়া  ৩. অন্ধ , ৪. বয়সের   কারণে এবং অক্ষমতাজনিত কারণে উপার্জনে অক্ষম ব্যক্তি,   ৫.  অসুস্থ  ব্যক্তি অথবা শিশুদের দেখাশুনার জন্য যাদের গৃহে থাকা নিতান্তই প্রয়োজন , ৬. সম্ভান্ত  স্ত্রীলোক  যারা সামাজিক কারণে  বাইরের লোকের সম্মুখে বের হতে পারেন না এবং অনাহারে থাকেন এবং  ৭.  যারা কাজ করতে পারেন না বা যারা কাজ পান না।

খ).  অনাহার জনিত খয়রাতি সাহায্য (নগদে) : স্টারভেশানজি.আর. -অনাহারজনিত মৃত্যু এড়াবার জন্য এই খয়রাতি সাহায্য দেওয়া হয়। পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তিকে এক একক (ইউনিট ) ১২০.০০ টাকা  এবং নাবালক /নাবালিকাকে তার অর্ধেক অর্থাৎ ৬০.০০ টাকা প্রতি মাসে দেওয়া হয়।

২.  জরুরীত্রাণ :  এমার্জেন্সি  রিলিফ :-

ক) বিশেষ খয়রাতি সাহায্য (স্পেশাল জি,আর )  : বিশেষ পরিস্থিতিতে বিপর্যয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে সাময়িক কালের জন্য পর্ণবয়স্ক ব্যক্তিকে ১২ কেজি  চাউল এবং নাবালক/নাবালিকাকে ৬ কেজি চাউল দেওয়া হয় প্রতি মাসের জন্য।

খ ) গৃহনির্মান অনুদান :- এইচ.  বি. গ্রান্ট : দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী ব্যক্তি, যাদের পারিবারিক মাসিক আয় ২৫০০.০০ টাকার বেশি নয়, তারা প্রাকৃতিক বিপর্যয় কিংবা আকস্মিক অগ্নিকান্ডে  গৃহনির্মান অনুদান পেতে পারেন।

৩.  প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে মৃতব্যাক্তির জন্য আর্থিক অনুদান (এক্সগ্র্যাসিয়াগ্র্যান্ট ) :-

ক।   প্রাকৃতিক বিপর্যয়, দুর্ঘটনাজনিত অগ্নিকান্ড,সর্পদংশন এবং দাবদাহে মৃত ব্যক্তির নিকট আত্মীয়কে এই অনুদান দেওয়া হয়।  এই অনুদান পাওয়ার জন্য নিম্নলিখিত কাগজপত্র জরুরি।

খ। রীতি অনুযায়ী প্রতিবেদন (Proforma Report)।

গ।  মৌলিক আবেদনপত্র ( Original petition).

ঘ।  পুলিশ প্রতিবেদন (মৃত্যুর কারণ সংবলিত )।

ঙ। মৃত্যুর শংসাপত্র।

চ । ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন (মৃত্যুর কারণ সংবলিত)।

সর্পদংশনের ক্ষেত্রে চিকিৎসাকারী ডাক্তারের মৃত্যুর কারণ সংবলিত শংসাপত্র হলেও চলবে।

৪).   অর্থনৈতিক পুনর্বাসন অনুদান (ই. আর. গ্রান্ট ) :- দু :স্থ ব্যাক্তিদের জীবিকা নির্বাহেরজন্য কোনো  উদ্যোগ চালাবার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সর্ব্বোচ ১৫০০০ টাকা অনুদান হিসাবে দেওয়া হয়।  কোনো পরিবারের মাসিক আয় ২৫০০ টাকা বা তার কম হলে ঐ পরিবারের কোনো সদস্য এই আর্থিক সাহায্য পেতে পাতেন।  নির্দিষ্ট নিদর্শো আবেদন করতে হবে সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক কিংবা পৌরসভার চেয়ারম্যানকে।  আবেদনের সঙ্গে একটি অনুমোদিত প্রকল্প জমা দিতে হবে। কোনো পরিবারের একজন সদস্য কেবল একবারই এই সুবিধা পেতে পারেন ।

 

Footer Background Image