Sorry, you need to enable JavaScript to visit this website.

অর্থ দপ্তর (স্বল্প সঞ্চয়) পশ্চিমবঙ্গ সরকার

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অর্থ দপ্তরের অধীন, স্বল্প সঞ্চয় অধিকার,

স্বল্প সঞ্চয়ের আকর্ষণীয় প্রকল্প গুলির মাধ্যমে জনগণকে ডাকঘরে টাকা জমা রাখার জন্য বিভিন্ন প্রচার মূলক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে বিগত বছরগুলিতে দেশের মধ্যে আমাদের রাজ্য শীর্ষ স্থান অধিকার করে চলেছে, যা আমাদের গর্বিত ও আনন্দিত করে।

উদ্দেশ্য গুলি

১. সমাজের সর্বসাধারণকে অবগত ও সতর্ক করা হয় যাতে তারা অজানা, অচেনা সংস্থায় টাকা রেখে সর্বস্বান্ত না হয়ে যায়। ডাকঘর সম্পূর্ণ সরকারি, তাই ডাকঘরে টাকা রাখার কোনো ঝুঁকি নেই এবং নিরাপদ।

২. স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প গুলি সবার সেরা, কারণ এখানে আছে আকর্ষণীয় সুদ, কর ছাড়ের সুবিধা এবং টাকা জমা রাখার সময় ও মেয়াদ শেষে টাকা তোলার সময় কোন আয়কর কাটা হয় না ।

৩. স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পে টাকা জমা রাখা যায়, স্বল্প সঞ্চয় এজেন্টের মাধ্যমে অথবা সরকারি ডাকঘরের কাউন্টারে । জমাকৃত টাকার রসিদ অবশ্যই লইবেন।

৪.স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প গুলি সম্পর্কে আরো বিশদ জানার জন্য উপ- অধিকর্তা স্বল্প সঞ্চয় দপ্তর এবং নিকটবর্তী পোস্ট অফিসে যোগাযোগ করুন।

"রাখলে টাকা ডাকঘরে, লক্ষী থাকেন সংসারে"

স্বল্প সঞ্চয়ের অন্যতম সেরা প্রকল্পগুলি

১. রেকারিং ডিপোজিট স্কিম:- সমাজের সর্বস্তরের মানুষের জন্য। মাত্র 10 টাকা প্রতি মাসে জমা দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলা যায় । প্রতিমাসে অল্প অল্প টাকা জমা দিয়ে, একসঙ্গে অনেক টাকা পাওয়া যায়। সঞ্চয় এর কোন উর্ধ্বসীমা নেই। যত খুশি পাসবই খোলা যায়। মেয়াদ পাঁচ বৎসর। প্রয়োজনে তিন বৎসর পর টাকা তোলা যায়। প্রতি তিন মাস পর পর সুদ চক্রবৃদ্ধি হারে বৃদ্ধি পায়।

২. কিষান বিকাশ পত্র:-একটি অত্যন্ত আকর্ষণীয় প্রকল্প, যার মাধ্যমে টাকা ডবল (দ্বিগুণ) করা যায়। ক্রয়ের কোনো উর্ধ্বসীমা নেই। কমপক্ষে ১০০০ টাকা অথবা তার গুনিতকে কেনা যায়। প্রয়োজনে আড়াই বছর পর টাকা তোলা যায়।

৩. ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট:- আয়কর ছাড় পাওয়ার অন্যতম সেরা প্রকল্প। বিনিয়োগের উর্ধ্বসীমা নেই। সুদ নির্ধারিত হয় অর্ধবার্ষিক চক্রবৃদ্ধি হারে।

৪. পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড:- জমা টাকার উপর আয়কর ছাড়, অর্জিত সুদ সম্পূর্ণ আয়কর মুক্ত, জমা টাকা সম্পদকর মুক্ত। বার্ষিক সর্বাধিক জমা ১.৫ লক্ষ টাকা। মোট জমা টাকা আদালতের ক্রোক বহির্ভূত।

৫. ডাকঘর মাসিক আয় প্রকল্প:-কমপক্ষে ১৫০০ টাকা দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। একক নামে সর্বাধিক ৪.৫ লক্ষ টাকা এবং যুগ্ম নামে নয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমা করা যায়। মেয়াদ ৫ বৎসর। জমা টাকার উপর প্রতি মাসে সুদ পাওয়া যায়।

৬. বরিষ্ঠ নাগরিক সঞ্চয় প্রকল্প:-৬০ বছর বা তার বেশি বয়স্ক মানুষ একক বা যুগ্ম নামে সর্বাধিক ১৫ লক্ষ টাকা জমা করতে পারেন। জমা টাকার উপর সুদ তিনমাস পরপর পাওয়া যায়। মেয়াদ ৫ বৎসর যেকোনো একজনের বয়স ৬০ বৎসর হলে অ্যাকাউন্ট খোলা যায় যুগ্ম ক্ষেত্রে।

৭. টাইম ডিপোজিট স্কিম:-কমপক্ষে ২০০ টাকা বা তার গুণিতকে যতখুশি অ্যাকাউন্ট খোলা যায়, মেয়াদ ৫ বছর। আয়কর আইনের ৮০ সি ধারায় আয়কর ছাড় পাওয়া যায়।

৮. সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা:-শিশুকন্যারজন্মেরপরথেকে১০বছরবয়সপর্যন্তঅ্যাকাউন্ট

খোলা যায়। কমপক্ষে ২৫০ টাকা দিয়ে অ্যাকাউন্ট খোলা যায়, প্রতিমাসে ২৫০ টাকা অথবা তার গুণিতকে বার্ষিক সর্বাধিক ১.৫ লক্ষ টাকা জমা দেওয়া যায়। ২১বছর পর একাউন্ট বন্ধ করা যায় অথবা বিবাহের কারণে ১৮ বৎসর পর টাকা তোলা যায়।

Footer Background Image